কীভাবে প্রতিষ্ঠানের বিজনেস লেটার হেড তৈরি করবেন?

একটি কোম্পানির বিজনেস লেটারহেড আপনার ব্যবসায়ের ব্র্যান্ড করার একটি দুর্দান্ত উপায়। আপনার প্রেরণকৃত প্রতিটি দস্তাবেজে আপনার লোগো এবং রঙীন স্কিম রাখুন। যা প্রতিটি গ্রাহকদের আপনার ব্যবসায়ের কথা মনে রাখতে সহায়তা করবে।

কীভাবে প্রতিষ্ঠানের বিজনেস লেটার হেড তৈরি করবেন

একটি কোম্পানির লেটারহেড আপনার ব্যবসায়ের ব্র্যান্ড করার একটি দুর্দান্ত উপায়। আপনার প্রেরণকৃত প্রতিটি লেটারহেডের দস্তাবেজে আপনার লোগো এবং রঙীন স্কিম রাখুন।

এতে প্রতিটি গ্রাহকদের আপনার ব্যবসায়ের কথা মনে রাখতে সহায়তা করবে। একটি সফল ব্যবসায়ের মূল চাবিকাঠি হতে পারে। আপনার গ্রাহকের মনে জাগ্রত এবং লেটারহেড একটি দুর্দান্ত অনুস্মারক। বিভিন্ন ভাবে আপনি লেটারহেড টেম্পলেট তৈরী করতে পারেন। একটি প্রফেশনাল ডিজাইনার যেমন এডুবি ইলেষ্ট্রেটর এবং এডুবি ফটোশপ দিয়ে তার ক্লায়েন্টের জন্য বিজনেস লেটারহেড তৈরী করে থাকেন। অপরদিকে একজন নিজ ‍উদোগী তার প্রতিষ্ঠানের জন্য মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ডের মতো একটি সাধারণ ওয়ার্ড প্রসেসিং প্রোগ্রাম ব্যবহার করে নিজের লেটারহেড তৈরি করাতে পারে অতি সহজে। প্রতিটি বিজনেস লেটারহেডে আপনার সংস্থার মূল তথ্য অন্তর্ভুক্ত করুন, আপনার লোগো যুক্ত করুন এবং আপনার কাছে এমন একটি লেটারহেড থাকবে যা পেশাদারভাবে তৈরি করা দেখায়।

বিজনেস লেটারহেডে আপনার ওয়ার্ড প্রসেসিং ডকুমেন্টে একটি শিরোনাম / পাদচরণ সন্নিবেশ করান। মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ডে মেনু থেকে একটি এফোর ডকুমেন্ট নিন এবং শিরোনামে আপনার ব্যবসায়ের তথ্য যুক্ত করুন।শিরনামটি এমন হতে হবে যে আপনার গ্রহকের মনে আটকে থাকে। মনে রাখবেন যে কোন প্রতিষ্ঠানকে বিভিন্ন ভাবে তার গ্রাহকের কাছে রিপ্রেজেন্ট করা যায় তাই বিজনেস লেটারহেড তৈরীতে আপনাকে অবশ্যই বিশেষ নজর দিতে হবে। আপনার প্রতিষ্ঠানের মূল শিরনাম যেন আকশনীয় এবং সহজে পাঠযোগ্য হয়। আর একটি বিজনেস লেটারহেডের মূল উপাদানগুলি হ’ল আপনার সংস্থার নাম এবং লোগো। প্রতিষ্ঠানের একমন একটি লোগো তৈরী করতে হবে যেটা আপনার প্রতিষ্ঠানের ব্যান্ড রিপেজেন্ট করে (একটি প্রফেশনাল মানের লোগোর জন্য এখানে ভিজিট করতে পারেন)। এবার লেটারহেডে আপনার প্রতিষ্ঠানের নাম যোগ করুন।

নামটি এমন ভাবে ডিজাইন করবেন যা আপনার তৈরী লেটারডেডে আলাদা সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে তার পাশাপাশি যে তা সহজে বোধগম্য হয়। প্রতিষ্ঠানের নাম লিখতে এমন কালার ব্যবহার করুন যা আপনার প্রতিষ্ঠানের লোগো এবং ব্যান্ডের সাথে সংঘতি পূন হয়। আপনার প্রতিষ্ঠানের লেটারহেডে লোগো উপরে বামে, ডানে, মধ্য খানে এবং নিচে ঠিক ফুটারের উপরেও হতে পারে। এতে কোন ধরা বাধা নিয়ম নেই। আপনার প্রতিষ্ঠানকে ঠিকভাবে রিপেজেন্ট করে তার দিকে নজর দিন। এবার আপনার প্রতিষ্ঠানের  ঠিকানা, ফোন নম্বর, ফ্যাক্স নম্বর, ইমেল ঠিকানা এবং ওয়েব ঠিকানা যোগ করুন। আপনার কোম্পানির লেটারহেড আপনার ব্যবসায়ের অন্যান্য অংশ যেমন আপনার ওয়েবসাইট বা বিজ্ঞাপনগুলির অনুরূপ ফর্ম্যাট । আপনার পছন্দের লেটারহেড ফিতে ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: